Breaking News
Home / জাতীয় / পদ্মা সেতুতে যুক্ত হলো আরেকটি স্প্যান

পদ্মা সেতুতে যুক্ত হলো আরেকটি স্প্যান

পদ্মা সেতুতে যুক্ত হলো আরও একটি স্প্যান। শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে জাজিরা প্রান্তে ৩৪ ও ৩৫ নম্বর খুঁটির ওপর ধূসর রঙের ‘৬ডি’ নম্বর এই স্প্যানটি বসিয়ে দেয়া হয়। এই নিয়ে জাজিরা অংশে সেতুটি দৃশ্যমান হলো ১২০০ মিটার। এছাড়া মাওয়া প্রান্তে আরও দৃশ্যমান রয়েছে ১৫০ মিটার। দেড় শ’ মিটারের একটি একটি করে ৯টি স্প্যান বসে ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে পদ্মা সেতু। এরই মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর অগ্রগতি আরেক ধাপ এগিয়ে গেল। এর আগে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে স্প্যানটি বসানোর কাজ শুরু হয়।

এর আগে ক্রেনবাহী জাহাজের নোঙ্গর জটিলতায় বৃহস্পতিবার পদ্মা সেতুর ৯ম স্প্যানটি বসানোর কথা থাকলেও তা সম্ভব হয়নি। পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সকালে ৭টা থেকে এটি ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারে বসানোর সব কাজ শুরু করতে গিয়ে নোঙ্গর সমস্যাটি ধরা পরে। দায়িত্বশীলরা জানান, এখানে বুধবারের ঝড়ের কারণে বিশাল জাহাজ ‘তিয়ান ই’র এ্যাঙ্করের একটি তার ছিঁড়ে যায়। পরবর্তীতে তাৎক্ষণিক আবার জাহাজটি যথাযথভাবে নোঙ্গর করার প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। তবে নানা কারণে নতুনভাবে নোঙ্গরে সময় বেশি লেগে যায়। তাই সিডিউল পরিবর্তন করে শুক্রবার সকালে নবম স্প্যানটি বসানো হয়। এদিকে বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে রওয়ানা দিয়ে ১২টার দিকে জাজিরায় পৌঁছে নবম স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) ‘৬ডি’। তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্য স্প্যানটি তিন হাজার ৬ শ’ টন ধারণ ক্ষমতার ভাসমান ক্রেন ‘তিয়ান ই’ ৩৫ নম্বর খুঁটির কাছে নোঙ্গর করে।

সেতু সূত্রে জানা গেছে, সেতুর মোট পিলার ৪২টি, এর মধ্যে ২১টির কাজ পুরোপুরি সম্পন্ন হয়েছে। ৪১টি স্প্যানের মধ্যে ইতোমধ্যেই বসানো হয়েছে জাজিরা প্রান্তে ৮টি এবং মাওয়া প্রান্তে একটি স্প্যান। যদিও মাওয়া প্রান্তের স্প্যানটি বসানো রয়েছে ৪ ও ৫ নম্বর খুঁটিতে। এটি পরবর্তীতে সরিয়ে নেয়া হবে ৬ ও ৭ নম্বর খুঁটিতে। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ মূল পদ্মা বহুমুখী সেতুর আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। জাজিরা প্রান্তে সেতুর ৩৪, ৩৫, ৩৬, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১ ও ৪২ পিলারে সাতটি স্প্যান বসানো হয়েছে।

About dhaka crimenews

Check Also

স্বাগত বাংলা নববর্ষ ১৪২৬

রবির কিরণে হাসি ছড়িয়ে অপ্রাপ্তি বেদনা ভুলে আজ নব আনন্দে জাগবে গোটা জাতি। বাংলাদেশের মানুষের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *