Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / ভাঙা রাস্তায় ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থীদের যাতায়াত

ভাঙা রাস্তায় ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থীদের যাতায়াত

নারায়ণগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ পীঠ ভট্টপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভাঙা রাস্তাটি কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মরনফাঁদে পরিণত হয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার রাস্তাটি সংস্কার করার নামে দীর্ঘদিন ধরে গর্ত খুঁড়ে রেখেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নাদিম এন্টারপ্রাইজ। এতে মৃত্যু ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী।

গতকাল সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, পঙ্খীরাজ খালের তীরের রাস্তাটি ভেঙে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। প্রায় দুইশত বছরের ঐতিহ্য সিদ্ধেশ্বরী পূজামণ্ডপ রক্ষা ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে জেলা পরিষদ রাস্তাটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়। ৩০ লাখ টাকা বাজেটের এ রাস্তাটির সংস্কারের কাজ পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নাদিম এন্টারপ্রাইজ। দীর্ঘ ছয়মাস ধরে গর্ত খুড়ে ঢালাইবেজ করে ২০ ফুট জায়গায় লোহার রড বেঁধে রেখে কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

জেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, পূজা মন্ডপ রক্ষার্থে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ গত দুই বছর আগে একটি ব্রিক গাইডওয়াল তৈরি করেছিলো। ওয়ালটি ভেঙে পড়ায় নতুন করে আরসিসি ওয়াল নিমার্ণের জন্য নাদিম এন্টারপ্রাইজ দরপত্রের মাধ্যমে কাজ পায়। প্রাক্কলনে পুরনো গাউডওয়াল ভাঙার জন্য বরাদ্ধ রাখা হয়। এতে পুরনো ও মেয়াদোত্তীর্ণ ইটের মূল্য নির্ধারন করা হয়নি।

ভট্টপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক কমিটির সভাপতি আবু নাঈম ইকবাল বলেন, পুরনো ব্রিকওয়ালের মেয়াদোত্তীর্ণ ইট রাতের আধারে ঠিকাদারের বাড়িতে নিয়ে কংক্রিট তৈরি করে। পরে সে কংক্রিট ও নিম্নমানের উপকরণ সামগ্রী ব্যবহার করার অভিযোগে সিদ্ধেশ্বরী পূজা কমিটি, বিদ্যালয়ের অভিভাবক কমিটি ও এলাকাবাসী নির্মাণাধীন কাজ সাময়িক বন্ধ করে দিয়েছেন । নিম্নমানের উপকরণ বাদ দিয়ে মানসম্মত উপকরণ ব্যবহার করার মাধ্যমে উন্নয়ন কাজ করার দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী। বড় বড় গর্ত খুঁড়ে রাখার কারনে বিদ্যালয়ে যাতায়াতের এ রাস্তাটি শিক্ষার্থী ও পথচারিদের মৃত্যু ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নাদিম এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী রফিকুল ইসলাম নান্নু অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি কোন নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহার করিনি।

জেলা পরিষদের প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা সুব্রত পাল কালের কণ্ঠকে জানান, দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলীকে সরেজমিন তদন্ত করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কি ধরনের নিমার্ণ সামগ্রী ব্যবহার করছে তদন্ত প্রতিবেদন পেলে জানা যাবে। নিন্ম মানের সামগ্রী ব্যবহার করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

About dhaka crimenews

Check Also

পালিয়ে বিয়ে করা দম্পতিদের সাহায্য করবে পুলিশ!

ভারতজুড়ে সম্মান রক্ষার্থে হত্যা দুঃখজনক সত্য। এই একবিংশ শতাব্দীতেও পরিবারের অমতে বিয়ে করলে প্রাণ দিতে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *