Breaking News
Home / জাতীয় / ৪০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয় পাওয়ার আশাবাদী ইকবাল হোসেন খন্দকার।

৪০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয় পাওয়ার আশাবাদী ইকবাল হোসেন খন্দকার।

স্টাফ রিপোর্টার : আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে সরাসরি প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার পাশাপাশি ১৮টি কাউন্সিলর পদেও দলীয় নেতাকে সমর্থন দেবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ। আগামী ফেব্রুয়ারীর শেষ সপ্তাহে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপনির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।  একই সঙ্গে নতুন যুক্ত হওয়া ১৮টি ওয়ার্ড ও ছয়টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে (ডিএনসিসি) যুক্ত হওয়া নতুন ১৮টি ওয়ার্ড ও ছয়টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডেও নির্বাচন হবে।  জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে এসব নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে।

সূত্রমতে, ডিএনসিসি নির্বাচনে কাউন্সিলের ৪০ নং ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন ঢাকা মহানগর উত্তর. ভাটারা থানা যুবলীগের কান্ডারী, রাজপথের সাহসী বীর সৈনিক, বঙ্গবন্ধু আদর্শে গড়া  ভাটারা থানা যুব লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ভাটারা ইউনিয়ন যুব লীগের সাধারণ সম্পাদক ভাটারা এলাকার সবার সুপরিচিতি খন্দকার বংশের সন্তান, ভাটারার কৃতি সন্তান শিক্ষিত যুবলীগ নেতা হাজী মোঃ ইকবাল হোসেন খন্দকার। ভাটারা এলাকায় খন্দকার বংশের যথেষ্ঠ সুনাম ও খ্যাতী রয়েছে। আর পুরো খন্দকার বংশের পূর্ব পুরুষগণ থেকে শুরু করে বর্তমানে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত রয়েছে।তাছাড়া এলাকা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন পদে অধিষ্ঠীত রয়েছেন এর মধ্যে উল্লেখিত মারকাজুুল কোরান ইনস্টিটিউটের পরিচালক, সোলমাইদ ইমমাদুল উলূম মাদ্রাস ও এতিমখানা কার্যকরী কমিটির নির্বাহী সদস্য, সোলমাইদ খন্দকার বাড়ী জামে মসজিদের পূর্নাঙ্গ কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সোলমাইদ সরকারী প্রাথমি বিদ্যালয়ের অভিভাবক কমিটির সভাপতিও বটে। ৪০ নং ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগের অন্যান্য মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাকর্মীদের চেয়ে বর্তমানে মোঃ ইকবাল খন্দকারের নাম রয়েছে সবার শীর্ষে। ভাটারা এলাকায়  তিনি শুধু যুব লীগের একজন নামের নেতা নয়, তিনি একজন ভাল সংগঠকের হাতিয়ারও বটে।ক্ষমতার রাজনীতি সবাই করতে পারেতবে সংগঠনের রাজনীতি সবাই করতে পারেনা বা সবাই বুঝেনা কিন্তু হাজী মোঃ ইকবাল হোসেন খন্দকার ভাটারা এলাকায় শুধু জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়নি বর্তমানে তিনি সংগঠনের দিক থেকেও অনেকটা এগিয়ে রয়েছে। ভাটারা থানার অর্ন্তগত ৪০ নং ওয়ার্ডে তার জনপ্রিয়তার কোন বিকল্প নেই  ফাসেরটেক, সোলমাইদ, খন্দকারবাড়ীর মোড়, বটগাছিয়া, নয়ানগরসহ অন্যান্য এলাকা না ঘুরলে বোঝাই যাবেনা যে, তার কত জনপ্রিয়তা। দলের তৃণমূল নেতাকর্মীরা তাদের প্রিয় নেতার জন্য রং বেরংয়ের ব্যানার, পোষ্টার, ফেস্টুনে ভরিয়ে দিয়েছে অত্র এলাকা। এ থেকে বোঝা গেছে ৪০ নং ওয়ার্ডবাসী তার পাশে আছে এবং থাকবে। মাদক ব্যবসা নির্মূল করার লক্ষে তিনি এলাকায় দীর্ঘ দিন যাবত কাজ করে যাচ্ছেন।ভাটারা এলাকায় তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে,তাকেই মনোনয়ন দেয়া উচিত বলে মনে করেন ৪০ নং ওয়ার্ডবাসী। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার লক্ষে দীর্ঘ দিন যাবত নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ৪০ নং ওয়ার্ডে তিনিই মনোনয়ন পাওয়ার যোগ্য বলে মনে করেন অত্র এলাকার আওয়ামীলীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা। তাই, তাকে মনোনয়ন দিলে ঐক্যবন্ধ  হয়ে তার  সাথে কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামীলীগের তৃণমূলের অনেক নেতাকর্মী।  এ ব্যাপারে হাজী মোঃ ইকবাল হোসেন খন্দকারের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, জনগণ আমাকে ৪০ নং ওয়ার্ড নির্বাচিত কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চায়, তাই তাদের কথা বিবেচনা করেই আমি ৪০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্ধীতা করব। তিনি আরো বলেন, ভাটারা এলাকায় ভাল কোন কলেজ নেই, চিকিৎসা সেবার জন্য নেই  কোন হাসপাতাল আমার ভবিষ্যত পরিকল্পনা হল, আমি মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হতে  পারলে জনগনের স্বার্থে ভাল একটি কলেজ ও একটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করার উদ্যোগ নিয়েছি। ৪০ নং ওয়ার্ডে তিনি ছাড়া অন্য কাউকে মনোনয়ন দিলে তার সাথে কাজ করবেন কিনা সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, হাই কমান্ড যে সিদ্ধান্ত নিবে আমি তার বাহিরে যাবনা। তবে হাই কমান্ডের প্রতি আমার অগাধ বিশ্বাস রয়েছে সংগঠনের দিক ও এলাকার জনগণের দাবীর কথা বিবেচনা করে আমাকেই মনোনয়ন দিবে বলে আমি আশাবাদী।

About dhaka crimenews

Check Also

তারেক জিয়া দেশে আসুক বিএনপিও চায়না

জাহিদ হাসান- ঢাকা ক্রাইম নিউজঃ বিএনপি নেতা খন্দকার মোশারফের একটি বক্তব্যের প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগের সাধারণ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *