Breaking News
Home / জাতীয় / অবশেষে বনশ্রী মূল সড়ক, ফুটপাথ ও ড্রেনের উন্নয়ন ও সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে ডিএনসিসি

অবশেষে বনশ্রী মূল সড়ক, ফুটপাথ ও ড্রেনের উন্নয়ন ও সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে ডিএনসিসি

সুজন আলী-

ঢাকা ক্রাইম নিউজঃ  দীর্ঘ ভোগান্তির পর অবশেষে রাজধানীর বনশ্রী মূল সড়ক, ফুটপাথ ও ড্রেনের উন্নয়ন ও সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)।

প্রায় ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটির উন্নয়ন করা হবে।

গতকাল এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ কাজের উদ্বোধন করেন ডিএনসিসির প্যানেল মেয়র মো: ওসমান গণি। ২২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো: লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মেজবাহুল ইসলাম, সচিব দুলাল কৃষ্ণ সাহা, নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান, কাউন্সিলর মোসতাক আহমেদ, মো: জাকির হোসেন প্রমুখ।

প্যানেল মেয়র বলেন, বনশ্রী এলাকাটি দীর্ঘ সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্ত ছিল না। গত সেপ্টেম্বর বনশ্রী এলাকার কিছু অংশ ডিএনসিসিতে অন্তর্ভুক্ত হয়।

অত্যন্ত জরাজীর্ণ অবস্থায় সড়কটি ডিএনসিসিতে হস্তান্তরিত হয়। ডিএনসিসি তাৎণিকভাবে প্রধান সড়কটি বিশেষ উন্নয়ন খাতের আওতায় সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহণ করে।

আগামী বর্ষা মওসুমের আগে সড়কটি দ্রুত মেরামত ও সংস্কার করে যানবাহন ও পথচারী চলাচলের উপযোগী হবে বলে আমরা আশা করছি। কোনো জটিলতা না থাকলে বনশ্রী মূল সড়ক ও রামপুরা ডিআইটি সড়কের প্রবেশ মুখের সড়ক দ্বীপে একটি মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপন করা হবে বলেও জানান ওসমান গণি।

ডিএনসিসির নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান জানান, যদিও চুক্তি অনুযায়ী এ কাজটি ২০১৮ সালের জুলাইয়ে শেষ হওয়ার কথা, তবে তা মার্চের মধ্যেই শেষ করার চেষ্টা করা হবে।

ডিএনসিসির কর্মকর্তারা জানান, প্রকল্পের অধীনে রামপুরা ব্রিজ থেকে বনশ্রীর ৩ নম্বর এভিনিউর ব্লক-৩ পর্যন্ত ১.৩৫০৬ কিলোমিটার রাস্তা, ১.৮৭৭২ কিলোমিটার ফুটপাথ ও ১.৮৭৭২ কিলোমিটার খোলা নর্দমা (আরসিসি ড্রেন – ১.০৩৭১ কিলোমিটার ও ব্রিক ড্রেন – ০.৮৪০২ কিলোমিটার) উন্নয়ন ও সংস্কার করা হবে। এ জন্য ব্যয় হবে ৯ কোটি ৩৯ লাখ ৯৯ হাজার ৪৪১ টাকা।

কাজটি বাস্তবায়ন করবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কেএসবিএল অ্যান্ড এমইএল (জেভি)। গত ১৯ ডিসেম্বর প্রকল্পের কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে। আগামী বছরের জুলাই মাসে কাজটি শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

রামপুরা ব্রিজ থেকে বনশ্রী আবাসিক এলাকার সি ব্লক পর্যন্ত প্রধান সড়কের প্রায় এক কিলোমিটার অংশে বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দ সৃষ্টি হওয়ায় দীর্ঘ দিন ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন ওই এলাকার বাসিন্দাসহ সড়ক ব্যবহারকারীরা।

গত বর্ষায় দুর্ভোগের মাত্রা আরো বেড়ে যায়।

সড়কটি দিয়ে রাত-দিন যানজট লেগেই থাকত।

সড়কটির উন্নয়ন হলে ওই এলাকার বাসিন্দাসহ সড়ক ব্যবহারকারীরা সুফল পাবেন।

About dhaka crimenews

Check Also

৮টি রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বাতিল হতে পারে

এম আই মিন্টু- ঢাকা ক্রাইম নিউজঃ নিবন্ধন পেতে আগ্রহী রাজনৈতিক দলের মধ্যে আরো আটটি দল ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *