Home / শিক্ষা / সরকারি ৬৫ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫৩ হাজার শিকের পদ শূন্য

সরকারি ৬৫ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫৩ হাজার শিকের পদ শূন্য

রুবাইয়া রুমি-

ঢাকা ক্রাইম নিউজঃ দেশের প্রায় ৬৫ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২১ হাজারটিতে প্রধান শিকের পদ শূন্য রয়েছে। এ ছাড়া আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে প্রায় ৩২ হাজার সহকারী শিকের পদ শূন্য হবে। সব মিলে ৫৩ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের পদ বর্তমানে শূন্য রয়েছে বা আগামী কয়েক মাসের মধ্যে শূন্য হতে যাচ্ছে।

আন্তর্জাতিক সারতা দিবস উপলক্ষে মন্ত্রণালয় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে গতকাল দুপুরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিা মন্ত্রী এবং মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসব তথ্য জানান।

মন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানান, শূন্য পদ পূরণের জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। পিএসসির সুপারিশকৃত ৮৯৮ প্রধান শিক্ষকের নিয়োগ সকল প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়ে রয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যাচাই-বাছাইসংক্রান্ত চূড়ান্ত প্রতিবেদন আগামী সপ্তাহেই পাওয়া যাবে।

এ প্রতিবেদন পাওয়া গেলেই তাৎক্ষণিকভাবে নিয়োগপত্র ইস্যু করা হবে। এসব প্রধান শিক্ষক জাতীয় বেতন স্কেলের ১১তম স্কেলে বেতনভাতা পাবেন। তারা আরো জানান, দেশের উত্তরাঞ্চলে ২৩ জেলায় আড়াই হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রাথমিক হিসাব অনুসারে।

এগুলো মেরামতের জন্য দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদানের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অতিরিক্ত কাস অথবা ছুটির দিনেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখতে জেলা-উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের এরই মধ্যে নির্দেশ পাঠানো হয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিা মন্ত্রী আরো জানান, ২০১৯ সালে মধ্যে দেশের কোথাও আর গাছ তলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদান হবে না। চলমান বন্যার কারণে এ কর্মসূচি কিছুটা থমকে গেলেও প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। হাওর-বাঁওড় এলাকার জন্য আলাদা ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে। পরিকল্পনামতো সে কাজও অব্যাহত রয়েছে।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর ২০১৬ সালের তথ্য অনুযায়ী দেশে সাক্ষরতার হার ৭২.০৩ শতাংশ দাবি করে সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী বলেন, সরকারের নানামুখী কর্মসূচির কারণে আগের চেয়ে সাক্ষরতার হার উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে এখনো প্রায় ২৭.০৭ শতাংশ জনগোষ্ঠী নিরক্ষর। মন্ত্রী বলেন, দেশের নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে কার্যকর জীবন দক্ষতাভিত্তিক সাক্ষরতা দিতে দেশের ৬৪ জেলায় ‘মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্প’ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

ওই জেলার ২৫০টি উপজেলায় ১৫-৪৫ বছর বয়সী ৪৫ লাখ নিরক্ষর নারী-পুরুষকে জীবনদক্ষতাসহ মৌলিক সাক্ষরতা দেয়া হবে।
মন্ত্রী আরো জানান, উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর আওতায় রূপকল্প-২০২১, এসডিজি-৪ ও সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার আওতায় তিন কোটি ২৫ লাখ নিরক্ষরকে সাক্ষরতা প্রদান, ৫ হাজার ২৫টি আইসিটি বেইজড কমিউনিটি লার্নিং সেন্টার প্রতিষ্ঠা এবং ৫০ লাখ নব্য সাক্ষরকে জীবিকায়ন দক্ষতা প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

মন্ত্রী জানান, আগামীকাল ৮ সেপ্টেম্বর ‘সারতা অর্জন করি, ডিজিটাল বিশ্ব গড়ি’ স্লোগানকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক সারতা দিবস পালন করা হবে।

অন্যান্য বছরের মতো এবারো আলোচনাসভা, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, শোভাযাত্রাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে। এবারের সব অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণশিা মন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায়।

About Dhakacrimenews24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *